বাংলাদেশ, মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০

জো বাইক সেবা এখন বাংলাদেশে!

প্রকাশ: ২০১৯-০১-০৮ ১৬:২৪:৩৯ || আপডেট: ২০১৯-০১-০৮ ১৬:২৪:৩৯

বাংলাধারা প্রতিবেদন »

বিশ্ব সেবা দেয়ার পর সম্প্রতি জো বাইক সেবা চালু হয়েছে বাংলাদেশে। এটি জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, সিঙ্গাপুরে দেশগুলিতে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। গত বছরের এই সময় পরীক্ষামূলকভাবে কক্সবাজারে জো বাইক সাইকেল ভাড়া চালু করা হয়েছিল।

জো বাইক হচ্ছে একটি ফোনের অ্যাপ্লিকেশন যা ব্যবহারকারীকে কাছাকাছি সাইকেল ভাড়া পেতে সহায়তা করে। আগে ব্যবহারকারীকে আ্যপসটি ডাউনলোড করতে হবে এবং প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে একাউন্ট তৈরি করতে হবে। তারপরে ব্যবহারকারীদের তাদের বাইকগুলি আনলক করতে কি কোড স্ক্যান করতে হবে।

ঢাকা ব্যবহারকারী এবং কক্সবাজার ব্যবহারকারীদের জন্য প্রতি মিনিটে ১ টাকা ও পাঁচ মিনিটে ৩ টাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবহারকারীদের জন্য। জো বাইক অ্যাপ্লিকেশন ইতিমধ্যে ৩৫,০০০ বার ডাউনলোড করা হয়েছে। বাইক প্রায় ৩০০০ বার ব্যবহার করা হয়েছে।

বর্তমান সেবা কভারেজ:
কক্সবাজারে চালু হওয়ার পর থেকে মানুষ এই সেবাটি গ্রহণ করেছে। কক্সবাজার ও মিরপুর ডিওএইচএস ছাড়াও জো বাইক জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়েও কাজ করছেন। ওই ক্যাম্পাসে মোট ২০০ টি বাইক ব্যবহার করা হচ্ছে।

জোবাইকে এই সপ্তাহে ৫০ টি সাইকেল চালানোর সাথে সাথে বর্তমান ক্যাম্পাসে ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণ করছে। কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পে দ্রুত শ্রমিকদের সহায়তা করার জন্য কোম্পানিটি অতিরিক্ত ২৫ টি বাইসাইকেল দান করেছে।

ঢাকার আগে কক্সবাজারে জো বাইক চালু:
জো বাইক চালুর এক বছর পর ঢাকায় তাদের অপারেশন প্রসারিত করছে। তারা অভ্যাস পরিবর্তন করতে চায় যাতে সাইক্লিং পরিবহনের মূলধারার পদ্ধতি হিসাবে অভিযোজিত হয়। পরিবহণের এই রূপটি আরও জনপ্রিয় হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে কারণ এটি ইকো-বন্ধুত্বপূর্ণ, স্বাস্থ্যসম্মত এবং সস্তা বিকল্প। ঢাকায় সেবা এখনও টেস্ট ড্রাইভ মোডে রয়েছে।

এজন্য সেবা প্রদানের উদ্দেশ্যে ৫০ টি বাইসাইকেল মিরপুর ডিওএইচএস সরবরাহ করা হবে। “আমরা তিনটি স্থানে আমাদের গ্রাহকদের কাছ থেকে অসাধারণ প্রতিক্রিয়া পেয়েছি এবং সেইজন্যই আমরা রাজধানীতে সেবা চালু করার প্রক্রিয়া চালাচ্ছি। আমরা এখন দুই মাসের মধ্যে শহরের অন্যান্য অংশে বাণিজ্যিকভাবে সেবা চালু করার লক্ষ্যে কাজ করছি।

জোবাইকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মেহেদি রেজার মতে,  এ মাসের মধ্যে সম্পূর্ণ রাজধানীতে সেবা প্রশস্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে এবং চট্টগ্রামে ফেব্রুয়ারী মাসে সেবা চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে।

বাংলাধারা/নিহা/মি/বোউ

ট্যাগ :