বাংলাদেশ, বুধবার, ২৭ মে ২০২০

মহিউদ্দিন সোহেল পরিকল্পিত হত্যাকান্ডের শিকার

প্রকাশ: ২০১৯-০১-০৮ ১৯:৫০:৫৩ || আপডেট: ২০১৯-০১-০৮ ১৯:৫০:৫৩

বাংলাধারা প্রতিবেদন »

আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নেতা মহিউদ্দিন সোহেলকে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে বলে দাবি করেছে নিহতের পরিবার। তার শরীরে ২৬ টি ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আজ মঙ্গলবার চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করেন তারা।

গতকাল সোমবার সকালে চট্টগ্রামের পাহাড়তলী রেলওয়ে বাজারে পিটুনিতে নিহত হন সোহেল। ব্যবসায়ীদের দাবি চাঁদাবাজির কারণে তিনি পিটুনির শিকার হয়েছিলেন।

আজ সংবাদ সম্মেলনে নিহতের ছোট ভাই শাকিরুল ইসলাম বলেন,স্থানীয় এক কাউন্সিলর এবং জাতীয় পার্টি করেন এক নেতার অনৈতিক ব্যবসার আখড়া ভেঙে দেন মহিউদ্দিন সোহেল। এই ক্ষোভ থেকে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে।

তিনি দাবি করেন, পাহাড়তলী রেলওয়ে বাজার ও আশেপাশের এলাকাকে মাদকমুক্ত করতে কাজ শুরু করের কারণে অনেকের চক্ষুশূল হন মহিউদ্দিন। তিনি কারো কাছ থেকে কখনো চাঁদা দাবি করেননি। তিনি রেলওয়ের একজন প্রথম শ্রেণির ঠিকাদার। চাঁদাবাজি করলে তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা বা জিডি থাকতো।

সংবাদ সম্মেলনে নিহতের স্ত্রী নিগার সোলতানা, তার দুই শিশু সন্তান, বাবা–মা ও এক বোন উপস্থিত ছিলেন। এ সময় একাত্তরের ঘাতক দালার নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক শওকত বাঙালিও নিহতের পরিবারের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন।

নিহতের পরিবার জানায়,মহিউদ্দিন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক ছিলেন। এ ছাড়াচট্টগ্রাম সরকারি কমার্স কলেজের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।

এদিকে, এই ঘটনায় এখনো পর্যন্ত থানায় মামলা হয়নি। নিহতের ছোট ভাই শাকিরুল ইসলাম জানান, তারা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

বাংলাধারা/নিহা/বোউ

ট্যাগ :