বাংলাদেশ, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯

ভারী বর্ষণে ওয়াশিংটন ডিসিতে বন্যা, হোয়াইট হাউজেও পানি

প্রকাশ: ২০১৯-০৭-০৯ ১১:৩৩:২৮ || আপডেট: ২০১৯-০৭-০৯ ১১:৩৩:৩৫

বাংলাধারা ডেস্ক »

ভারী বর্ষণে যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসির আংশিক প্লাবিত হয়েছে, এ সময় হোয়াইট হাউজের নিচতলার একটি দপ্তরের মেঝে চুইয়ে পানি উঠেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

সোমবারের ওই বৃষ্টিপাতে মাত্র এক ঘণ্টার মধ্যেই প্রতিদিনের বৃষ্টিপাতের রেকর্ড ভেঙে যায় এবং নগরীর অনেক এলাকায় লোকজন আকস্মিক বন্যার মধ্যে গাড়িতে আটকা পড়ে বলে, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

গাড়িতে আটকা পড়া লোকজনকে উদ্ধার করতে তড়িঘড়ি করে ১৫টি উদ্ধারকারী দল নামানো হয়।  

স্থানীয় সময় সকাল ৯টা থেকে ১০টার মধ্যে রিগ্যান ন্যাশনাল এয়ারপোর্টে আট দশমিক চার সেন্টিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। এটি এক ঘণ্টায় আগের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের রেকর্ড পাঁচ দশমিক ছয় সেন্টিমিটারকে ছাড়িয়ে যায়; ১৯৫৮ সালে এ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছিল।  

১৮৭১ সালে রেকর্ড রাখা শুরু হওয়ার পর থেকে এটি সপ্তম বৃষ্টিবহুল জুলাই বলে জানিয়েছেন এনডব্লিউএসের আবহাওয়াবিদ মার্ক চেনার্ড। এক ঘণ্টার মধ্যেই দৈনিক রেকর্ড ভেঙে গেছে, বলেছেন তিনি।  

ওয়াশিংটনের নিকটবর্তী ভার্জিনিয়ার আর্লিংটনে আরও বেশি বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। সেখানে সকাল ৯টা থেকে ১০টার মধ্যে ১২ দশমিক সাত সেন্টিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে বলে চেনার্ড জানিয়েছেন।

সকালের শেষভাগে বৃষ্টিপাত কমে এসেছে এবং দুপুরের মধ্যে বন্ধ হতে পারে, এমন আশা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।   

প্রবল বৃষ্টিপাতের সময় ওয়াশিংটনের মেট্রো স্টেশনগুলোর সিলিং থেকে প্রবল ধারায় পানি নেমে আসতে থাকে ও নগরীর প্রধান প্রধান জাদুঘর ও স্মৃতিসৌধমুখি সড়কগুলো তলিয়ে যায়। এই সড়কগুলো বন্ধ করে দেওয়ার পর স্থানীয় জরুরি বিভাগের কর্মীরা গাড়িতে আটকা পড়া বেশ কয়েকজনকে উদ্ধার করে।

দুপুরের মধ্যে ১৫ জন গাড়ি চালককে উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানায় ওয়াশিংটন ডিসি দমকল ও ইএমএস। পানিতে আটকা পড়া লোকজনকে উদ্ধারে দমকল কর্মীরা হলুদ রঙের উদ্ধারকারী লাইফবোট ব্যবহার করে।

হোয়াইট হাউজের (১৬০০ পেনসিলভ্যানিয়া অ্যাভিনিউ) নিচ তলার একটি দপ্তরের মেঝেতে চেয়ার ও ডেস্কের তলায় ভেজা কার্পেট ও পানি দেখা যায়।

টুইটারে ছবি দিয়ে সিএনএনের সাংবাদিক বেস্টি ক্লেইন লিখেন, “হোয়াইট হাউজে চুইয়ে পানি উঠছে।”

বাংলাধারা/এফএস/এমআর