বাংলাদেশ, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯

‘ছড়াটে’র আয়োজনে চট্টগ্রামে জমজমাট ছড়া উৎসব

প্রকাশ: ২০১৯-০৮-০৭ ১৩:১৪:৩৮ || আপডেট: ২০১৯-০৮-০৭ ১৩:১৭:১৬

বাংলাধারা প্রতিবেদন »

ছড়া শিল্পীদের প্রাণবন্ত উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত হলো ছড়াটে চট্টগ্রামের আয়োজনে জমজমাট ছড়া উৎসব।

মঙ্গলবার (৬ আগষ্ট) সন্ধ্যা ৬ টায় নন্দন কানন ফুলকি মিলনায়তনে ছড়া উৎসব এর আয়োজন করে উত্তর আমেরিকার সংগঠন ছড়াটে। উৎসবে অতিথি ছিলেন কবি ও শিশুসাহিত্যিক রাশেদ রউফ।

কবি জিন্নাহ চৌধুরীর স্বাগত বক্তব্যে উৎসবে বক্তব্য রাখেন সাহিত্যিক অধ্যক্ষ ড. আনোয়ারা আলম, কবি খালেদ সরফুদ্দীন ও সাম্স চৌধুরী রুশো, বেতার ব্যক্তিত্ব ফজল হোসেন।

উৎসবে রাশেদ রউফ বলেন, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বাংলা ছড়া বিকশিত হয়েছে। ক্রমশ সৃষ্টি হয়েছে ছড়ার শাখা-প্রশাখা, পত্র-পল্লব। বাংলাদেশের ছড়ায় শিশুতোষ সংখ্যার আধিক্য বেশি। অধিকাংশই শিশুমনস্তত্ত্ব নির্ভর। এসব শিশুতোষ ছড়ায় রাজনীতির ছোঁয়া নেই, সমসাময়িক টানাপড়েন নেই, আছে শুধু ছোটদের আনন্দদানের প্রচেষ্টা। বেশির ভাগ ছড়াতেই স্পষ্ট হয়ে ওঠে হাস্যরস, কৌতুক ও উপদেশ। তবে যে ছড়া শিশুদের ঘুম পাড়ানিয়া হিসেবে ব্যবহৃত হতো, সে ছড়া ক্রমশ পরিণত হয়েছে ঘুম জাগানিয়ায়। ছড়ার ভাষাও হয়ে উঠেছে রাজনৈতিক মুক্তির হাতিয়ার, প্রতিবাদের মাধ্যম।

তিনি আরো বলেন, ছড়ার প্রচলিত ধারণাকে ভেঙে ছড়াকে বহুমুখী করে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছেন ছড়াশিল্পীরা। কবি জিন্নাহ চৌধুরী বলেন, কম কথায় অনেক কথা বলা যায় ছড়ায়। তাই সাহিত্যের একটি শক্তিশালী মাধ্যম হচ্ছে ছড়া সাহিত্য। তিনি আরো বলেন, দেশের নানা ক্রান্তিকালে ছড়াশিল্পীরা প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করেছে।

কবি খালেদ সরফুদ্দীন বলেন, আমরা একদল ছড়া লিখিয়ে বন্ধু সুদূর আমেরিকায় যান্ত্রিক ব্যস্ততার মাঝেও প্রাণের টানে ছড়া সাহিত্য চর্চা করে চলেছি। সেখান থেকে আমরা অনেক ছড়া সংকলনও প্রকাশ করেছি। চট্টগ্রামে এই আয়োজন বলা চলে প্রাণের টানে। কেননা এক সময় আমরা এই চট্টগ্রাম থেকেই ছড়া সাহিত্য চর্চা করেছি।

এদিকে উৎসবে যাদের ছড়ার আবৃত্তি হয়েছে তারা হলেন, ছড়া যাদুকর সুকুমার বড়ুয়া, কবি সুজন বড়ুয়া, সনতোষ বড়ুয়া, সৌরভ সাখাওয়াত, লীনা চৌধুরী, লুৎফর রহমান রিটন, রাশেদ রউফ, ফজিলাতুন নাহার রুনু, রহীম শাহ, মিনার মনসুর,মাহফুজুল আলম খান, কামরুল হাসান বাদল, ওমর কায়সার, এমরান চৌধুরী, এয়াকুব সৈয়দ, উৎপল কান্তি বড়ুয়া, উত্তম সেন, ইকবাল বাবুল, আহসান মালেক, আহমেদ জসিম, ইউসুফ রেজা, আকতার হোসাইন,আলেক্স আলীম, পথিক ইদ্রিস,অজয় দাশ গুপ্ত, শাম্স চৌধুরী রুশো, খালেদ সরফুদ্দীন, মন্জুর কাদের, কেশব জিপসী, জসীম মেহবুব ও জিন্নাহ চৌধুরী।

উৎসবে চট্টগ্রামের স্বনামধন্য আবৃত্তি সংগঠন বোধন আবৃত্তি পরিষদ, প্রমা আবৃত্তি সংগঠন, ও তরুণ্যের উচ্ছাস শিশু শিল্পীরা অংশগ্রহণ করে।

বাংলাধারা/এফএস/এমআর

ট্যাগ :