বাংলাদেশ, মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০

রেকর্ডের পর রেকর্ড রশিদ খানের

প্রকাশ: ২০১৯-০৯-০৮ ১৭:২৯:২৪ || আপডেট: ২০১৯-০৯-০৮ ১৭:২৯:৩০

বাংলাধারা প্রতিবেদন »

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের বিপক্ষে ঐতিহাসিক টেস্ট জয়ের অপেক্ষায় আছে আফগানিস্তান। নিজেদের ইতিহাসের তৃতীয় টেস্টেই দ্বিতীয় জয়ের পথ রচনা করে নিয়েছে তারা। বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ দিয়েই রশিদ খানের নেতৃত্বের অভিষেক হয়েছে। সমচেয় কম বসয়ে টেস্টে নেতৃত্ব দিয়ে এরই মধ্যে তিনি রেকর্ড গড়ে ফেলেছেন। নেতা রশিদ খান ব্যাটে-বলে গড়েছেন এক রেকর্ড। তার সামনে আরও রেকর্ড অপেক্ষ করছে।

প্রথম ইনিংসে রশিদ খান ব্যাট হাতে দারুণ এক ফিফটি করেন। দলকে বড় রান এনে দেন তিনি। এরপর বল হাতে নেন পাঁচ উইকেট। এতেই দারুণ রেকর্ড হয়ে যায় তার। টেস্টে আগে নেতৃত্বের অভিষেকে পাঁচ উইকেট ও ফিফটির রেকর্ড ছিল তিনজনের। রশিদ খান যোগ হলেন তাদের কাতারে। এর আগে ইংল্যান্ড অধিনায়ক স্যার ফ্রাঙ্ক স্ট্যানলি জ্যাকসন এই রেকর্ড গড়েন।

তার পরে পাকিস্তানের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ইমরান খান টেস্ট নেতৃ্ত্বের অভিষেকে নেন পাঁচ উইকেট। সঙ্গে ফিফটি করেন তিনি। সাকিবও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট অধিনায়কত্বের অভিষেকে এই রেকর্ডের পাশে বসেন। দ্বিতীয় ইনিংসে সাকিব ৭০ রানে ৫ উইকেট নেন। ব্যাট হাতে করেন ৯৭ বলে ৯৬ রান। এবার রশিদ খান যোগ হলেন তাদের পাশে।

রশিদ খানের জন্য অপেক্ষা করছে আরও এক রেকর্ড। বাংলাদেশের বিপক্ষে জিততে পারলে সবচেয়ে কম বয়সে টেস্টে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে জয় পাওয়া অধিনায়কও হবেন তিনি। তার আগে টাতেন্দা তাইবু শ্রীলংকার বিপক্ষে ২০ বছর ৩৫৮ দিনে টেস্ট অধিনায়ক হলেও ম্যাচটায় জয় পাননি। নবাব পতৌদি খান ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২১ বছর ৭৭ দিনে দলকে নেতৃত্ব দিলেও সেই ম্যাচে জয় পাননি তিনি।

কম বয়সে টেস্ট নেতৃত্ব দিয়ে জয় পাওয়া অধিনায়ক ওয়াকার ইউনুস। তিনি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২২ বছর ১৫ দিনে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে জেতান। গ্রায়েম স্মিথ ২২ বছর ৮২ দিনে বাংলাদেশের বিপক্ষে ও সাকিব ২২ বছর ১১৫ দিনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে জয় পান।

বাংলাধারা/এফএস/এমআর/টিএম

ট্যাগ :