বাংলাদেশ, বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ইয়াবা কারবারি দুই রোহিঙ্গা নিহত

প্রকাশ: ২০১৯-১০-১৮ ১০:১৫:১৭ || আপডেট: ২০১৯-১০-১৮ ১০:১৫:২৩

কক্সবাজার প্রতিনিধি » 

কক্সবাজারের টেকনাফে বিজিবির সাথে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ইয়াবা কারবারি দুই রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে। এসময় বিজিবির তিন সদস্য আহত হন। ঘটনাস্থল হতে ৫০ হাজার পিস ইয়াবা, ১টি অস্ত্র ও ২ রাউন্ড গুলি এবং ২টি লম্বা দা উদ্ধার হয়েছে। শুক্রবার (১৮ অক্টোবর ) ভোররাতের দিকে টেকনাফের হোয়াইক্যং লম্বাবিল নাফনদী এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, কক্সবাজারের উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবিরের ব্লক-এ/৩ এর সোলতান আহমেদের ছেলে আবুল হাসিম (২৫), একই রোহিঙ্গা বস্তির ব্লক-সি/১ এর আবু ছিদ্দিকের ছেলে নূর কামাল (১৯)।

টেকনাফ-২ ব্যাটলিয়ন বিজিবি কমান্ডার লে. কর্ণেল ফয়সাল হাসান খান বলেন, হোয়াইক্যং বিওপির সদস্যরা বৃহস্পতিবার দিনগত রাত (১৭ অক্টোবর) ১২টার দিকে নাফনদীর কিনারায় টহল দিচ্ছিল। । এসময় হস্ত চালিত একটি নৌকায় করে কিছু লোক বাংলাদেশের জলসীমায় প্রবেশ করে। বিজিবি সদস্যরা উতপেতে থাকে। দুজন লোক কূলে নামা মাত্র বিজিবি সদস্যরা তাদের চ্যালেঞ্জ করলে তারা তীর দিয়ে দৌড় দেয়। নৌকায় থাকারা নৌকাটি নিরাপদ আশ্রয়ে নেয়। পলায়নরতরা আকস্মাৎ বিজিবি সদস্যদের উপর গুলি বর্ষণ করে। তাদের দেখাদেখি নৌকায় থাকারাও গুলি চালায়। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়।

উভয় পক্ষের এই গোলাগুলির ঘটনাটি নিয়ন্ত্রনে আসারা পর ঘটনাস্থল থেকে ২ জনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। তাদেরকে টেকনাফ উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন। পকেটে থাকা পরিচয় পত্রে তারা রোহিঙ্গা বলে সনাক্ত হয়। এ ঘটনায় বিজিবির তিন সদস্যও আহত হন। তারা টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিচ্ছে।

বিজিবি কমান্ডার আরো জানান, ঘটনাস্থল থেকে দেশীয় তৈরী ১টি এলজি, ২ রাউন্ড তাজা গুলি, ২টি রাম দা ও ৫০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহগুলো কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা রুজু করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

বাংলাধারা/এফএস/টিএম

ট্যাগ :