বাংলাদেশ, শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯

রাঙামাটিতে ‘বুলবুল’ মোকাবেলায় সর্বাত্মক প্রস্তুতি, খোলা হয়েছে ৪০ আশ্রয়কেন্দ্র

প্রকাশ: ২০১৯-১১-০৯ ১৫:০২:১৫ || আপডেট: ২০১৯-১১-০৯ ১৫:০২:২২

রাঙামাটি প্রতিনিধি »

আসন্ন ঘুর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাতে সম্ভাব্য দুর্যোগ মোকাবেলায় ও অনাকাঙ্খিত ক্ষয়ক্ষতিরোধে সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন কর্তৃপক্ষ।

এই লক্ষ্যে শনিবার (৯ নভেম্বর) জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে জরুরী প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জেলার পুলিশ বাহিনী, বিজিবি, ফায়ার সার্ভিস, আনসার ব্যাটালিয়ান, রেডক্রিসেন্ট, বিদ্যুৎ বিভাগ, স্বাস্থ্য বিভাগ, সড়ক বিভাগসহ সংশ্লিষ্ট্য সকল সরকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি, স্বেচ্ছাসেবী ও গণমাধ্যমকর্মীদের নিয়ে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেছেন রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ।

সভায় জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদ বলেন, যদিও রাঙামাটি জেলার জন্য নির্দিষ্ট কোন সংকেত নেই তবুুও উপকূলীয় পাশবর্তী অঞ্চল হওয়ায় দূর্যোগ মোকাবেলায় যাবতীয় প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। যাতে যে কোন ধরনের অনাকাঙ্খিত ক্ষয়ক্ষতি প্রতিরোধ করা যায়।

তিনি জানান, জেলা সদরে ৪০ টি অস্থায়ী আশ্রয় কেন্দ্র, পর্যাপ্ত শুকনা খাবার ও প্রয়োজনীয় ত্রাণ সামগ্রী প্রস্তুত রাখা হয়েছে। একই সাথে ফায়ার সার্ভিস, রোভার স্কাউট, রেড ক্রিসেন্টসহ সকল ধরনের সেচ্ছাসেবী সংগঠনে স্বেচ্ছাসেবীরা প্রস্তুত রয়েছে। বুলবুল সম্পর্কে জনসাধারণের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে মাইকিংসহ প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানান জেলা প্রশাসক।

শনিবার দুপুরে আয়োজিত এই সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শারমিন আলম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শিল্পী রানী রায়, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফাতেমা তুজ জোহরা উপমা, বিদ্যুৎ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সবুজ কান্তি মজুমদার, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার উদয়ন চাকমা, প্যানেল মেয়র জামাল উদ্দিনসহ রেডক্রিসেন্ট, স্কাউট ও জেলা পর্যায়ে উর্ধতন কর্মকর্তা, গণমাধ্যম কর্মী ও অন্যান্য স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাধারা/এফএস/টিএম/এএ

ট্যাগ :