বাংলাদেশ, বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ে রাষ্ট্রীয় পলিসি পুনঃমূল্যায়নের দাবি জেএসএস’র

প্রকাশ: ২০১৯-১১-১০ ১৭:০৩:১১ || আপডেট: ২০১৯-১১-১০ ১৭:০৩:১৩

রাঙামাটি প্রতিনিধি » 

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ে রাষ্ট্রীয় পলিসি পূনঃমূল্যায়নের দাবি জানিয়েছেন সাবেক সংসদ সদস্য ও পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি জেএসএস’র কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ঊষাতন তালুকদার।

পার্বত্য চট্টগ্রামের সাবেক সংসদ সদস্য ও জেএসএস’র প্রতিষ্ঠাতা মানবেন্দ্র নারায়ন লারমার ৩৬তম মৃত্যুবার্ষিকীতে আয়োজিত স্মরণ সভায় ঊষাতন তালুকদার আরো বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ে প্রকৃত চিত্র বাদ দিয়ে পাহাড়ের পস্থিতিকে বিশেষণ লাগিয়ে তিলকে তাল করে দেখিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ভূল তথ্য উপস্থাপন করে তার কান ভারী করা হচ্ছে।

রোববার (১০ অক্টোবর) সকাল ১০টায় পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস), রাঙামাটি জেলা শাখার উদ্যোগে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে আয়োজিত এই স্মরণ সভায় জেএসএস রাঙামাটি জেলা শাখার সভাপতি শ্রী নিখোলাই পাংখোয়ার সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক সুনির্মল দেওয়ানের সঞ্চালনায় উক্ত স্মরণ সভায় অন্যান্যের মাঝে আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য গৌতম কুমার চাকমা, শিক্ষাবিদ মংসানু চৌধুরী, আদিবাসী ফোরাম চট্টগ্রাম অঞ্চলের সভাপতি প্রকৃতি রঞ্জন চাকমা, এমএন লারমা মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশনের আহবায়ক বিজয় কেতন চাকমা, শিক্ষাবিদ, লেখক ও সাংস্কৃতিক কর্মী শিশির চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সহ-সভাপতি সুমন মারমা বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

উক্ত স্মরণ সভার শুরুতে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস), রাঙামাটি জেলা শাখার তথ্য ও প্রচার সম্পাদক নগেন্দ্র চাকমা শোক প্রস্তাব পাঠ করেন। এরআগে রোববার সকালে প্রভাতফেরি ও মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পন করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন দলীয় নেতাকর্মীরা।

স্মরনসভায় জেএসএস’র অন্যতম প্রভাবশালী নেতা ঊষাতন তালুকদার আরো বলেন, পাহাড়ের মানুষ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে নয়, যদিও স্বাধীনতা সংগ্রামের সময় পার্বত্য চট্টগ্রামে ভারতের পতাকা উত্তোলিত হয়েছিলে। কিন্তু অমুসলিম অধ্যুসিত অঞ্চল ভারতের সাথে সংযুক্ত হবে বিধায় এখানে সেসময় ভারতের পতাকা উঠানো হয়েছিলো। তার অর্থ এই নয় যে পাহাড়ের মানুষ এখনো ভারতকে সমর্থন করে। আমরা বাংলাদেশকে ভালোবাসি, এই দেশেই স্বাধীন নাগরিক হিসেবে বসবাস করতে চাই।

সরকারের উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে উষাতন তালুকদার বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা-স্বার্বভৌমত্বকে স্বীকার করেই সন্তু লারমা সরকারের সাথে পার্বত্য চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছিলো। সেই আলোকেই জনসংহতি সমিতি নিজেদের অধিকার, ভূমির অধিকার ও জাতির অস্থিত্বের কথা বলছি।

কোনো কালেই দেশের স্বাধীনতা স্বার্বভৌমত্বের বিরুদ্ধে কিছু বলিনি এবং অবস্থান কারনি মন্তব্য করে উষাতন তালুকদার বলেছেন, একটি গাছকে সবসময় কাটতে কাটতে একটা সময় সেটি পড়ে যায়, ঠিক তেমনিভাবে পাহাড়ের সার্বিক বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ভূল তথ্য উপস্থাপন করে তার কান ভারি করা হচ্ছে।

যার ফলশ্রুতিতে চুক্তি সম্পাদনকারি দল জনসংহতি সমিতির সাথে এখন কি ধরনের আচরন করা হচ্ছে সেটি ভেবে দেখার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছেন উষাতন তালুকদার। পাহাড়ের পরিস্থিতি তিলকে তাল করা হচ্ছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, অথচ এখনো পর্যন্ত পার্বত্য চুক্তি বাতিল করা হয়নি, ভঙ্গ করা হয়নি এবং চুক্তি বলবৎ রয়েছে। পাহাড়ের মানুষকে সংক্ষুব্ধ করা হচেছ, তাদেরকে গুম করা হচ্ছে, বিপদে ধাবিত করা হচ্ছে।

প্রয়াত এমএন লারমা কখনোই দেশের বিরুদ্ধে নিজে অবস্থান নেননি, তিনি জুম্ম জাতিকে আত্মনিয়ন্ত্রণের সংগ্রামের দিকে ধাবিত করতে চেয়েছেন। তার দেখানো পথে জুম্মজাতিকে এগিয়ে যেতে হবে সেই লক্ষ্যে দলকে আরো সুসংগঠিত করতে হবে বলেও নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন ঊষাতন তালুকদার।

বাংলাধারা/এফএস/টিএম

ট্যাগ :