বাংলাদেশ, শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯

মহাবিপদ সংকেত প্রত্যাহার: ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত

প্রকাশ: ২০১৯-১১-১০ ১২:০১:৪৫ || আপডেট: ২০১৯-১১-১০ ১২:০৮:১৮

বাংলাধারা প্রতিবেদন »  

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ দুর্বল হয়ে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে দেশের সব সমুদ্রবন্দর থেকে মহাবিপদ সংকেত প্রত্যাহার করে নিতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এর পরিবর্তে সমুদ্রবন্দরগুলোকে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

রোববার(১০ নভেম্বর) এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন ঢাকাস্থ আগারগাঁওয়ের আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ আবুল কালাম মল্লিক।

তিনি জানান, ‘স্থলভাগে আসার আগেই ঘূর্ণিঝড়টি তুলনামূলকভাবে দুর্বল হয়ে যায়। এটি প্রথমে সুন্দরবন অঞ্চলে আঘাত হানে। এরপর খুলনা ও সাতক্ষীরা অঞ্চলসহ বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাংশের উপর দিয়ে বয়ে যায়। এখন এটি বরিশাল-বরগুনা-পটুয়াখালী অঞ্চল দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।ঘূর্ণিঝড়টি প্রভাবে যে পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছিল, সেই শঙ্কা এখন আর নেই। এটি ক্রমশ দুর্বল হয়ে যাচ্ছে। তাই সব সমুদ্রবন্দর থেকে মহাবিপদ ও বিপদ সংকেত নামিয়ে ফেলতে বলা হয়েছে।

আবুল কালাম মল্লিক আরো বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে বৃষ্টি হচ্ছে। কোথাও কোথাও দমকা ও ঝড়ো বাতাস বইছে। সারা দেশে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। আজ সন্ধ্যা নাগদ  বাংলাদেশ অতক্রিম করবে এটি। এটি কুমিল্লা হয়ে আগরতলা পর্যন্ত লঘুচাপ আকারে ধীরে ধীরে শেষ হবে।

এর আগে গতকাল শনিবার সকাল থেকে মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরসহ উপকূলের নয় জেলা এবং অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তর। পাশাপাশি চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরসহ অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহের ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়। প্রায় ২৪ ঘণ্টা পর সেটি প্রত্যাহার করে নেয়া হলো।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে প্রভাবে উপকূলীয় জেলাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হচ্ছে। সমুদ্র উত্তাল হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে আজ রোববারও সারাদেশে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া বিরাজ করবে। আগামীকাল সোমবার থেকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

বাংলাধারা/এফএস/টিএম

ট্যাগ :