বাংলাদেশ, বুধবার, ২৭ মে ২০২০

পটিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে চুরি

প্রকাশ: ২০২০-০১-০৫ ২৩:১২:৩০ || আপডেট: ২০২০-০১-০৫ ২৩:১২:৩৭

পটিয়া প্রতিনিধি » 

পটিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) অফিসে দুর্ধষ চুরির ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার গভীর রাতে প্রধান অফিস সহকারীর রুমের তালা ভেঙে দুইটি আলমিরা ভেঙে নগদ অর্থ চুরি করে নিয়েছে দূবৃত্তরা ।

উপজেলার অভ্যান্তরে ১৬টি সিসিটিভি ক্যামরাদ্বারা নিয়ন্ত্রন করা হলেও সিসিটিভিতে চুরি দৃশ্য ধরা পড়েনি।

জানা যায়, পটিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাবিবুল হাসান বৃহস্পতিবার অফিসের কাজ শেষ করে সংশ্লিষ্টরাসহ বন্ধ করে যে যার মতো চলে যান। শনিবার রাত অনুমানিক ২টার পরে সংঘবদ্ধ চোরের দল ইউএনও অফিসে কৌশলে প্রবেশ করেন। প্রায় দুই ঘন্টা ধরে তালা ভেঙে অফিসের দুইটি আলমিরা থেকে নগদ অর্থ নিয়ে যান। তবে সর্বমোট কত টাকা নেওয়া হয়েছে তা নিশ্চিত করে জানাতে পারেনি।

আজ রবিবার সকালে অফিসে খুললে প্রধান সহকারী অমর কান্তি দাশের অফিস কক্ষের তালা ভাঙা এবং দুইটি আলমিরা ভাঙাচোরা দেখতে পান। ইউএনও অফিসের নিচে নৈশ্যপ্রহরী বিমল নাথ দায়িত্ব থাকলেও চোরের দল কৌশলে প্রবেশ করে তালা ও আলমিরা থেকে অর্থ লুট করে নিয়ে গেছে।

রবিবার সকালে খবর পেয়ে ইউএনও হাবিবুল হাসান, পটিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, পৌরসভার মেয়র অধ্যাপক হারুনুর রশিদ, ভাইস চেয়ারম্যার ডা: তিমির বরণ চৌধুরী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাজেদা বেগম শিরু খোঁজখবর নেন।

পটিয়া উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা হাবিবুল হাসান জানান, উপজেলার চারিদিকে ১৬টি সিসিটিভি ক্যামরা রয়েছে। চোরের দল কৌশলে প্রবেশ করে অফিসের প্রধান সহকারীর রুমের তালা ভেঙে আলমিরা থেকে অর্থ নিয়ে গেছে। তবে সর্বমোট কত টাকা ছিল তা এখনো নিশ্চিত হতে পারেননি। অফিসের উত্তর সাইডে জ্যাম্পিং করে দ্বিতীয় তলা দিয়ে উঠে তালা ও আলমিরা ভেঙে অর্থ নিয়ে গেছে। একটি সিসিটিভি ক্যামরা প্যাকেট দিয়ে ক্যামরার সামনের সাইড চেপে ধরে প্রবেশ করেছে, যার কারনে চোর সনাক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না। তারপরও কিভাবে প্রবেশ করে চুরি করেছে তা বের করার চেষ্টা করছেন।

বাংলাধারা/এফএস/টিএম

ট্যাগ :