বাংলাদেশ, বুধবার, ২৭ মে ২০২০

যেসব তেল ঠাণ্ডার সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে

প্রকাশ: ২০২০-০১-০৫ ১৯:০২:৩৫ || আপডেট: ২০২০-০১-০৫ ১৯:০২:৪১

বাংলাধারা ডেস্ক »

শীতে অসংখ্য ভালোলাগার ভিড়ে একটি খারাপ লাগা হলো, সর্দি-কাশির মতো সমস্যা। গরম কাপড়ে নিজেকে আগাগোড়া মুড়িয়ে রাখলেও এটি নিশ্চিত করতে পারবেন না যে, আপনি অসুস্থ হবেন না! অল্পতেই ঠান্ডা লেগে হাঁচি-কাশি শুরু হয়ে যেতে পারে। সেখান থেকে দীর্ঘ সময় ধরে ঠান্ডা লাগা। এক্ষেত্রে উপশম পাওয়ার জন্য আমরা নানাভাবে চেষ্টা করে থাকি। এই শীতে ঠান্ডাজনিত সমস্যা থেকে দূরে রাখতে সাহায্য করবে এই তিন এসেনশিয়াল অয়েল-

ইউক্যালিপটাস এসেনশিয়াল অয়েল :
ইউক্যালিপটাস এসেনশিয়াল অয়েল কাশি এবং অন্যান্য শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা যেমন ফ্যারিঞ্জাইটিস, ব্রঙ্কাইটিস এবং সাইনোসাইটিসের চিকিৎসার জন্য পরিচিত। ইউক্যালিপটাস এসেনশিয়াল অয়েলে ব্যবহারে আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী হয়, যা ব্যাকটেরিয়াকে আরও কার্যকরভাবে লড়াই করতে সহায়তা করে। ইউক্যালিপটাস অয়েল এমনকি বিখ্যাত মেডিকেটেড ভেপার তৈরিতে ব্যবহৃত হয়, যা সারা বিশ্বে সর্দি এবং কাশি নিরাময়ের জন্য ব্যবহৃত হয়। এই তেল শরীরে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখে, কফ জমতে দেয় না এবং রাতের বেলা আপনাকে আরও ভালো ঘুমাতে সাহায্য করে।

রোজমেরি এসেনশিয়াল অয়েল :
রোজমেরি কেবল স্বাদের জন্যই ব্যবহৃত হয় না, এটি স্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী। রোজমেরি এসেনশিয়াল অয়েলের একটি প্রশান্তিদায়ক প্রভাব রয়েছে। এটি শ্বাসনালীর পেশীগুলো শান্ত করতে পারে যা আপনাকে সহজে শ্বাস নিতে সহায়তা করবে। রোজমেরি এসেনশিয়াল অয়েল এমনকি হাঁপানির চিকিৎসা এবং প্রদাহ কমাতে ব্যবহৃত হয়। এই তেলটি বুকের কফ দূর করার জন্য এবং আরও অনেক টনিক তৈরিতে ব্যবহৃত হয়।

থাইম এসেনশিয়াল অয়েল :
থাইমের পাতাগুলো কাশির সঙ্গে লড়াইয়ের বৈশিষ্ট্যযুক্ত। এতে আছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস, অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি-ফাঙ্গাল। থাইম এসেনশিয়াল অয়েলটি একটি দুর্দান্ত অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল এজেন্ট যা বিভিন্ন শ্বাস প্রশ্বাসের পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পেতে সহায়তা করতে পারে।

বাংলাধারা/এফএস/টিএম/এএ

ট্যাগ :