বাংলাদেশ, শুক্রবার, ৩ এপ্রিল ২০২০

মাটি খুঁড়তেই বেরিয়ে এলো ২’শ বছরের পুরাতন ‘রৌপ্যমুদ্রা’

প্রকাশ: ২০২০-০২-২৫ ১৯:২৪:৫৬ || আপডেট: ২০২০-০২-২৬ ১৬:৩৫:০১

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি »

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলায় পুরাতন মাটির ঘরের মাটি খুঁড়ে ২শ বছরের পুরাতন কয়েকশ ‘রৌপ্যমুদ্রা’ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে উপজেলার জামাল ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের দে পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কালীগঞ্জ উপজেলা পূর্বে জামাল ইউনিয়নের গ্রাম গোপালপুর। গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে বেগবতী নদী। দুইশত বছরের অধিক সময় ধরে এই গ্রামে বসবাস করছে মুসলিম ও হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ। ওই গ্রামের কৃষক সুনিল দে। তাদের বাড়িতে রয়েছে চার পুরুষ পূর্বের ২০০ বছরের একটি পুরাতন মাঠির ঘর। ১৫ দিন আগে পুরাতন সেই ঘর ভেঙ্গে মেঝের মাটি কেটে পান বরজে নিয়ে যাচ্ছিল। সোমবার মাটি কাটার সময় পাওয়ার ট্রলির চাকার সাথে হঠাৎ বেরিয়ে আসে শত শত মুদ্রা। যে সব মুদ্রায় গ্রেট ব্রিটেনের রাণী ভিকটরিয়া ও রাজা সপ্তম এ্যাডওয়ার্ডের ছবি রয়েছে।

বাড়ির মালিক সুনিল দে’র ভাই সুদিপ কুমার দে জানায়, আমার দাদার বাবা মানে চার পুরুষ আগের তারুণ দে গোপলপুর গ্রামে এই মাটির ঘরটি তৈরি করেন। তখন থেকেই পর্যায়ক্রমে এই ঘরে আমরা বসবাস করে আসছি। সম্প্রতি ঘরটি ভেঙ্গে সেই মাটি পান বরজে নেওয়া হচ্ছিল। সে সময় মাটির নীচ থেকে ‘রৌপ্যমুদ্রা’ বের হয়ে আসে। এসময় আমার ভাবি করুণা রাণী দে ২৬টি মুদ্রা কুড়াই। যেগুলো সোমবার সন্ধ্যা রাতে সাদা পোশাকের পুলিশ এসে নিয়ে গেছে। পরে রাতে আরও দু’দফায় পুলিশ বাড়িতে এসে তল্লাসি করে। তবে তার ধারণা এসব মুদ্রা আমাদের চার পুরুষ আগের তারুণ দে মাটির নীচে রেখে দিয়েছিল।

স্থানীয়রা বলছেন, মাটি কাটার সময় কয়েকশ মুদ্রা বেরিয়ে আসে। তাদের দাবি উদ্ধার হওয়া মুদ্রাগুলো সবই রৌপ্যমুদ্রা। তবে কত পরিমাণ পাওয়া গেছে তা নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। গ্রামবাসী জানিয়েছে পুলিশ তাদের কাছ থেকে অর্ধশত মুদ্রা নিয়ে গেছে আর বাকি মুদ্রা শ্রমিকরা আত্মসাত করেছে।

২নং জামাল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোদাচ্ছের হোসেন জানান, আমি লোকমুখে শুনেছি কিন্তু নিজে দেখিনি। শুনেছি একটি পুরাতন বাড়ির মাটি কাটার সময় রৌপ্যমুদ্রাগুলো বেরিয়ে আসে। যা উপস্থিত সবাই যে যার মতো কুড়িয়ে নিয়ে গেছে।

কালীগঞ্জ থানার এএসআই সুজাত আলী জানান, সংবাদ পেয়ে সন্ধ্যা রাতে ওই গ্রামে অভিযান চালিয়ে ৪৩টি মুদ্রা উদ্ধার করা হয়। বাকি মুদ্রাগুলো স্থানীয়রা আত্মসাৎ করেছে। উদ্ধার হওয়া মুদ্রার মধ্যে ২২টিতে রাণী ভিক্টরিয়ার ছবি ও ১৯টি ব্রিটেনের রাজার ছবি রয়েছে। উদ্ধার করা মুদ্রাগুলো বাংলাদেশ সরকারের প্রত্নতাত্ত্বিক অধিদপ্তরকে দিয়ে দেওয়া হবে।

কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সূবর্ণা রাণী সাহা জানান, সাংবাদিকদের কাছ থেকে জানার পর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) এ বিষয়টি নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি।

বাংলাধারা/এফএস/টিএম

ট্যাগ :