বাংলাদেশ, শুক্রবার, ৩ এপ্রিল ২০২০

দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের উপ সমাজসেবা সম্পাদক হলেন চন্দনাইশের খোরশেদ

প্রকাশ: ২০২০-০৩-১৫ ১৯:২৬:৫১ || আপডেট: ২০২০-০৩-১৫ ১৯:২৬:৫৩

বাংলাধারা প্রতিবেদন »

বাংলাদেশ ছাত্রলীল কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষিত চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির উপ সমাজসেবা সম্পাদক হলেন চন্দনাইশের খোরশেদ আলম।

গত (৪ মার্চ) বুধবার সকালে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার এ পূর্ণাঙ্গ কমিটি তালিকাটি প্রকাশ করা হয়।

দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের এ পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে ৪ জনকে উপ সমাজসেবা সম্পাদক মনোনীত করা হয়। এ তালিকায় চন্দনাইশের খোরশেদ আলম উপ সমাজসেবা সম্পাদক হিসেবে স্থাপন পেয়েছেন।

দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের নবগঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে স্থান পেয়ে খোরশেদ আলম বলেন, আমি বঙ্গবন্ধু আদর্শে রাজনীতি করেছি সবসময় পদের রাজনীতি করিনি। তবুও দলীয় পদ আমার রাজনীতির স্বীকৃতি হিসাবে আমার চলার পথে অনুপ্রেরণা যোগাবে। আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে নিয়ে মানুষের সেবায় সবসময় নিয়োজিত থাকতে চাই এবং সকলের কাছে দোয়া চাই।

খোরশেদ আলম ছাত্রজীবনের সূচনালগ্ন থেকে বঙ্গবন্ধু আদর্শ ধারণ করে ছাত্ররাজনীতি করে এসেছেন। পটিয়া সরকারি কলেজে অধ্যায়নকালে খোরশেদ আলম ইন্টার ইয়ার কমিটির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন এবং পরবর্তী সময়ে সাদার্ন বিশ্ববিদ্যালয়েও ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন তিনি।

পরবর্তীতে আইন বিষয়ে আধ্যায়ন শুরু থেকে প্রগতিশীল শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের নিয়ে আওয়ামী রাজনীতির দলীয় প্রোগ্রামে নিয়মিত অংগ্রহণ করেন এবং দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের কর্মসূচিতেও নিয়মিত অংশগ্রহণ করেন খোরশেদ আলম।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৮ সালে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। আবদুল কাদের সুজনকে সভাপতি ও আ ম ম টিপু সুলতান চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক করে গঠিত ওই কমিটি ২০০৩ সাল পর্যন্ত বহাল থাকে। ২০০৩ সালে এই কমিটি ভেঙে দিয়ে মোহাম্মদ ফারুককে আহ্বায়ক করে তিন মাসের জন্য কমিটি গঠন করা হয়। তিন মাসের এই কমিটি বহাল থাকে ২০১১ সাল পর্যন্ত, অর্থাৎ ৮ বছর। ২০১১ সালে মোহাম্মদ ফারুকের নেতৃত্বাধীন এই কমিটি ভেঙে দিয়ে আবদুল মালেক জনিকে আহ্বায়ক করে কমিটি গঠন করা হয়। পরে সালাহ উদ্দিন সাকিবের নেতৃত্বাধীন কমিটির কার্যক্রম ২০১৪ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে বন্ধ করে দেয়া হয় কেন্দ্র থেকে। তখন থেকে নেতৃত্বশূন্য ছিল চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ। পরে ২০১৭ সালে এসএম বোরহান উদ্দিনকে সভাপতি এবং আবু তাহেরকে সাধারণ সম্পাদক করে ৫১ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। সেই কমিটিই এবার বর্ধিত আকারে ঘোষণা করা হলো।

বাংলাধারা/এফএস/টিএম/এএ

ট্যাগ :