বাংলাদেশ, বুধবার, ৮ জুলাই ২০২০

রেড জোন এলাকায় মিলছে না চসিকের সুযোগ-সুবিধা; অভিযোগ এলাকাবাসীর

প্রকাশ: ২০২০-০৬-২২ ১৩:১৯:৪৬ || আপডেট: ২০২০-০৬-২২ ১৪:৩৮:৪৬

বাংলাধারা প্রতিবেদন »

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) প্রথম রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত ১০নং উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডে গত ১৬ জুন থেকে বাস্তবায়ন করা হয়েছে লকডাউন। লকডাউন বাস্তবায়নে চসিকের পক্ষ থেকে নানা সুযোগ-সুবিধা দেয়ার কথা থাকলেও তার কিছুই বাস্তবায়ন হচ্ছে না বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

এলাকাবাসীরা অভিযোগ করে বলেন, নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী, পর্যাপ্ত চিকিৎসা সেবা, বা অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস কোনটাই পাওয়া যাচ্ছে না। তাই বাধ্য হয়েই ঘর থেকে বের হচ্ছেন বলে দাবি তাদের।

উত্তর কাট্টলীর বাসিন্দা আবু ইসহাক জানান, গত রোববার রাতে বোনের প্রসব বেদনা শুরু হয়। এ সময় দ্রুত কন্ট্রোল রুমের হেল্প লাইনে অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের জন্য ফোন দেয়া হয়। কিন্তু কোন ধরনের সেবা পাওয়া যায়নি। পরে রেড ক্রিসেন্টের অ্যাম্বুলেন্স ডেকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় প্রসূতি মাকে।

এর আগে গত ১৪ জুন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এক আলোচনা সভার আয়োজন করে। সেখানে লকডাউনকৃত এলাকায় করোনা আক্রান্ত কিংবা সন্দেহভাজনরা যাতে টেস্ট করাতে পারে সেজন্য একাধিক নমুনা বুথ ও অ্যাম্বুলেন্স সুবিধা দেয়ার কথা বলা হয়। এলাকার মানুষ যাতে সিটি কর্পোরেশনের কন্ট্রোল রুমে ফোন করার সাথে সাথে সব পায় সেই ব্যবস্থা করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ঘরে বসেই যাতেই সব ধরনের পণ্য পেতে পারে সেই আয়োজনও থাকবে বলে চসিকের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

তাছাড়া ই কমার্সের মাধ্যমে হোম ডেলিভারির মাধ্যমে পণ্য ক্রয়ের ব্যবস্থা, একইসাথে স্বেচ্ছাসেবক ও সিটি কর্পোরেশনের মাধ্যমে ত্রাণ সহায়তা বাড়িয়ে দেয়ার পাশাপাশি ভ্যানের মাধ্যমে এলাকায় নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সরবরাহ করার সিদ্ধান্তও নেয়া হয় ওই সভায়।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বাংলাধারাকে জানান, সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে জনসাধারণ পর্যাপ্ত সেবা না পেলে,মানুষকে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ও স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে সাহায্য করা না গেলে, লকডাউন সফল হবে না।

এ ব্যাপারে জানতে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

নগরীর উত্তর কাট্টলী এলাকায় আটাত্তর হাজার মানুষের বসবাস। করোনার বিস্তার রোধে নগরীর ১০টি রেডজোন ওয়ার্ডের মধ্যে প্রথম লকডাউন করা হয় উওর কাট্টলী ওয়ার্ডটিকে। লকডাউন চলাকালীন স্বেচ্ছাসেবকদের মাধ্যমে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী, চিকিৎসা সেবাসহ আনুষাঙ্গিক সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার কথা থাকলেও কিছুই পাওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ কাট্টলীবাসীর। তাই ঘর থেকে বাধ্য হয়েই বের হতে হচ্ছে বলে জানান এলাকাবাসী।

বাংলাধারা/এফএস/টিএম

ট্যাগ :