বাংলাদেশ, বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলীর প্রতি শেষ শ্রদ্ধা

প্রকাশ: ২০২০-০১-০১ ১৩:৩১:৪১ || আপডেট: ২০২০-০১-০১ ১৩:৩১:৪৬

বাংলাধারা ডেস্ক »

প্রয়াত রাষ্ট্রদূত, সাবেক পররাষ্ট্র সচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলীকে শেষ শ্রদ্ধা জানালো ঢাকা। রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় বুধবার (১ জানুয়ারি) জানাজার নমাজের পর প্রয়াত রাষ্ট্রদূতকে রাষ্ট্রীয় সম্মান প্রদর্শন করা হয়।

এ সময় রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রীর প্রতিনিধি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী, ঢাকায় কর্মরত বিদেশি কূটনীতিকসহ বিভিন্ন স্তরের মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় উপস্থিত পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেন, সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী একজন মহান ব্যক্তি। মুক্তিযুদ্ধের সময় তার অবদান অবিস্মরণীয়। আমাদের মাতৃভাষা বাংলাকে আন্তর্জাতিক ভাষা হিসেবে ইউনেস্কোর স্বীকৃতি পাওয়াতে সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলীর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিলো।

তিনি আরও বলেন, গত নভেম্বরে ভারতে দায়িত্ব শেষে দেশে ফেরার পর তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী তাকে বাংলাদেশ বিষয়ে লেখালেখি করার পরামর্শ দেন। তিনি প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শে আনন্দিত হয়েছিলেন এবং সেটা আমার সঙ্গে শেয়ার করেছিলেন। কিন্তু এর মধ্যেই তিনি না ফেরার দেশে চলে গেলেন।

গত সোমবার (৩০ ডিসেম্বর) বার্ধক্যজনিত জটিলতার কারণে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে মৃত্যু হয় সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলীর। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৭৫ বছর।

সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী সম্পর্কে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়, ১৯৬৮ সালে পাকিস্তান ফরেন সার্ভিসে যোগ দেওয়ার মধ্য দিয়ে কূটনৈতিক পেশা শুরু করেন তিনি। একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় মোয়াজ্জেম আলী যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে পাকিস্তানের দূতাবাসে কর্মরত ছিলেন। ১৯৭১ সালের ৪ আগস্ট তিনি পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রতি আনুগত্যের ঘোষণা দেন এবং ওয়াশিংটনে অস্থায়ী বাংলাদেশ সরকারের দূতাবাস প্রতিষ্ঠা করেন।

মোয়াজ্জেম আলী ভুটান, ইরান ও ফ্রান্সে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পালন করেছেন। ওয়াশিংটন, ওয়ারশ, জেদ্দার পাশাপাশি নয়াদিল্লি মিশনেও কাজ করেছেন তিনি। তিনি অবসরে যাওয়ার পর ২০১৪ সালে বর্তমান সরকার তাকে ভারতে বাংলাদেশের হাই কমিশনার পদে নিয়োগ দেন।

বাংলাধারা/এফএস/টিএম/এএ

ট্যাগ :

close