বাংলাদেশ, শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০

হাটহাজারীতে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রসহ আটক ৪

প্রকাশ: ২০২০-০১-০২ ১৯:৪২:২৫ || আপডেট: ২০২০-০১-০২ ১৯:৪২:৩২

বাংলাধারা প্রতিবেদন »

চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী থানার সদ্বীপ কলোনি এলাকায় দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী সুমনকে তিন সহযোগী ও বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্রসহ আটক করেছে র‌্যাব-৭।

বৃহস্পতিবার ( ২ ডিসেম্বর ) দুপুর সাড়ে বারোটা নাগাদ এ ঘটনা ঘটে। অভিযানে আটককৃত ব্যক্তিরদের নাম- মোঃ সুমন (৩৬), মোঃ আসাদুল­ (২৬), মোঃ ফারুক জাহেদ (২০) ও মোঃ আরিফ (২০)।

সুমন ফতেহাবাদ গ্রামের মৃত মজিবুল হকের ছেলে। আসাদুল চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী থানার মোঃ নোওয়া মিয়ার ছেলে। ফারুক চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী থানার মোঃ রফিকের ছেলে । আরিফ চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী থানার মোঃ আব্দুল মান্নার ছেলে।

র‌্যাব-৭ এর পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারা যায় যে, চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী থানার ত্রাশ, ভূমি দস্যু, চাঁদাবাজ, দখলবাজ, দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী, অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসায়ী সুমন তার দলবলসহ এলাকায় সন্ত্রাসী কার্যকলাপ সৃষ্টির উদ্দেশ্যে তার নিজ বসত বাড়ির সামনে একত্রিত হয়েছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৭’র একটি আভিযানিক দল বর্ণিত স্থানে অভিযান পরিচালনা করলে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পালানোর চেষ্টাকালে তাদের আটক করা হয় ।

আটককৃতদের দেখানো ও সনাক্ত মতে তল্লাশী করে, সুমনের বসত বাড়িতে ১ টি অত্যাধুনিক বিদেশী পিস্তল, ৫ টি ওয়ানশুটার গান, ১৪ রাউন্ড গুলি এবং বিপুল পরিমান দেশীয় অস্ত্র ও অস্ত্র তৈরির সরঞ্জামাদি উদ্ধার করে র‌্যাব-৭।

পরবর্তিতে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা দীর্ঘদিন যাবত চট্টগ্রাম জেলার হাটজাহারীসহ চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকার মানুষকে অবৈধ অস্ত্রের ভয়ভীতি দেখিয়ে সন্ত্রাসী কার্যক্রম, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী বাহিনীর সাথে অস্ত্র ব্যবসা করে আসছে। দলনেতা সুমনের বসত ঘরে বিভিন্ন অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি দিয়ে নানা প্রকারের দেশীয় অস্ত্র তৈরি করত তারা । এছাড়াও সুমনের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম জেলার বিভিন্ন থানায় বিভিন্ন অপরাধের দায়ে ৩৫ টির অধিক মামলা রয়েছে বলে জানা যায়।

উল্লেখ্য, আটককৃত ব্যাক্তিরা ও উদ্ধারকৃত আলামত সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী থানায় হস্তান্তরের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানায় র‍্যাব-৭।

বাংলাধারা/এফএস/টিএম/ইরা

ট্যাগ :

close