বাংলাদেশ, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০

ঘরবন্দি সময়ে নিজেকে সুস্থ রাখতে যা করবেন

প্রকাশ: ২০২০-০৫-০৭ ১১:১৯:৫২ || আপডেট: ২০২০-০৫-০৭ ১১:২১:০০

বাংলাধারা ডেস্ক »

দেহ, মন, জীবন- সবই যেন হঠাৎ করে থমকে গিয়েছে একটি মাত্র শব্দে। লকডাউন। এর তীব্র প্রভাব পড়ছে আমাদের জীবনে। বিজ্ঞান বলে, সমগ্র জীবজগতের মধ্যে একমাত্র মানুষই পারে সব পরিস্থিতিতে মানিয়ে নিতে ও সেখান থেকে শিক্ষা নিয়ে এগিয়ে চলতে। তাই এই সময় ভাল থাকার উপায়গুলি রপ্ত করতে পারলে আমরা আরও একটু বেশি সুস্থ ও ভালো থাকতে পারবো।

সুস্থ শরীর ও মনের চাবিকাঠি লুকিয়ে আছে জীবনযাত্রার চারটি স্তম্ভের ওপর। তা হলো- সঠিক খাবার, সঠিক ব্যায়াম, ভাল মানের পর্যাপ্ত ঘুম ও ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি।

এই সময়ের খাবার হতে হবে কম ক্যালরিযুক্ত, সহজপাচ্য, পুষ্টিগুণে ভরপুর, অনুত্তেজক, সহজে পাওয়া যায় এমন এবং যা রসনা তৃপ্তি দেয়। তবে অবশ্যই সেগুলি সাশ্রয়ী ও সহজে মজুদ রাখা যায় এমন হতে হবে। এক কথায় কেনার সময় অর্থের সাথে একটু বুদ্ধি খরচ করলেই মুশকিল আসান। চলুন করোনাকালের খাবার সম্পর্কে জেনে নিই।

ঘরবন্দি অবস্থায় ময়দার পরিবর্তে গোটা গমের আটা, ডালিয়া, ওটস, ভাত, রুটি, চিড়ে ,মুড়ি ,ভুট্টা, জোয়ার, বাজরা, রাগি প্রভৃতির ওপর জোর দিন। এগুলি পুষ্টিগুণসমৃদ্ধ ও প্রচুর ফাইবারের উৎস।

যে কোনও গোটা বা ভাঙা ডাল, বীজ ও বাদাম জাতীয় খাবার রাখতে হবে। কাবলি ছোলা, সবুজ মুগ কলাই, ছোলা, সয়াবিন উল্লেখযোগ্য। এগুলি দ্বিতীয় শ্রেণির প্রোটিনের উৎকৃষ্ট উৎস। সয়াবিন রান্নার আগে প্রেসার কুকারে সেদ্ধ করে জল ফেলে তার পরে নাগেটগুলি রান্নায় ব্যবহার করুন।

এই সময়ে খান মৌসুমী শাক-সবজি ও ফল। এছাড়া খাদ্য তালিকায় রাখুন রাখুন মাছ, মুরগি অথবা ডিম তার সাথে দুধ, দই বা ছানা। থাকুক রান্নার তেল ও অন্যান্য সামগ্রী।

খাদ্যব্যবস্থা সুষম রাখতে চাই পরিকল্পনা ও তার সঠিক পরিচালনা। কারণ সুষম খাদ্য আপনাকে এনে দেবে সেই সমস্ত খাদ্য উপাদান যেগুলি আপনার শরীর ও মনকে সুস্থ ও সবল রাখবে। ভিটামিন এ, সি, ই আর ডি মানবদেহে রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থায় উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে। খনিজ লবণের মধ্যে জিংক, সেলেনিয়াম, আয়রন ও ক্যালসিয়াম মজবুত প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা তৈরিতে অনস্বীকার্য।

এই সময়ে বাড়িতে রান্না করে খাবার অভ্যাস নিজেদের অজান্তেই আমরা তৈরি করছি। চেষ্টা করা ভাল, তা যেন পরবর্তী সময়েও অটুট থাকে। খুব প্রয়োজন ছাড়া বাইরের খাবার যেন আমরা না খাই, কারণ বাইরের খাবারের গুণগত মান কম হয় এবং তা শরীরের জন্য নিরাপদ নয় মোটেই।

হার্বাল চা তৈরি করুন আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়িয়ে তুলতে। আপনার দৈনিক চায়ের পাতার সঙ্গে থাকবে আদা, লেমনগ্রাস, লবঙ্গ, দারচিনি। এসবের যেকোনো এক বা একাধিক উপাদান মিশিয়ে লিকার বানান, চিনির বদলে ব্যবহার করুন যষ্টিমধু। এখন হাতের কাছে থাকসেও চিনি ছাড়া খাবার অভ্যাস গড়ে তুলুন| দিনে তিন থেকে চার লিটার পানি পান করুন।

আর একটি শর্ত হলো ভাল ঘুম। সকালে নরম সূর্যের আলোয় হালকা ব্যায়াম করুন। তাহলে রাতে স্লিপ হরমোন তৈরি হবে ভালভাবে। ঘুমাতে যাওয়ার সময়ে খান এক কাপ উষ্ণ দুধ ও এক চামচ মধু। এছাড়া ঘুমানোর আগে ল্যাপটপ ও মোবাইলের কাজ বন্ধ করুন। হালকা মেডিটেশন করুন। সবশেষে ঘরবন্দি ও চাপের এই সময়ে সুস্থ থাকুন। স্বাস্থ্যকর রুটিন মেনে চলুন।

বাংলাধারা/এফএস/টিএম/এএ

ট্যাগ :

close