বাংলাদেশ, সোমবার, ৩ আগস্ট ২০২০

চাকমা ভাষায় নির্মিত হচ্ছে চলচ্ছিত্র ‘গৌরি’

প্রকাশ: ২০২০-০৭-২৯ ২০:৩২:২১ || আপডেট: ২০২০-০৭-২৯ ২০:৩২:২৩

বাংলাধারা বিনোদন »

দেশের পার্বত্য এলাকায় বিদ্যমান জাতিগত সাম্প্রদায়িকতা এবং সেখানকার বিভিন্ন জাতির মধ্যেকার আন্তঃসম্পর্কের সঙ্কটের মতো চ্যালেঞ্জিং বিষয় নিয়ে নিজের প্রথম চলচ্চিত্র ‘গৌরি’ তৈরী করছেন নির্মাতা শাহরিয়া পুলক।

এক চাকমা পরিবারকে কেন্দ্র করে এগিয়েছে যার গল্প। ছবিটির অধিকাংশ সংলাপও থাকবে চাকমা ভাষায়। চট্টগ্রামের কাপ্তাই ও রাঙামাটি সদরের বিভিন্ন এলাকায় চিত্রায়িত এই সিনেমার দৈর্ঘ্য হবে কমপক্ষে ৯০ মিনিট।

চিত্রায়নকালে স্থানীয় সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর বাঁধার শিকার হয়ে তিনদিন কাজ বন্ধ রাখতে হয়েছে নির্মাতাকে। কাপ্তাই থানায় তিনি এ বিষয়ে একটি মামলাও দায়ের করেছেন। যেসব আদিবাসী এই চলচ্চিত্র নির্মাণের কাজে অংশগ্রহণ করেছেন, তাদেরও হুমকি, এমনকী ক্ষেত্র বিশেষে সরাসরি বাঁধাও দেওয়া হয়েছে।

“তবে একটি অসাম্প্রদায়িক জাতিবিদ্বেষহীন বাংলাদেশ গড়ার দৃড় প্রত্যয়ে সব বাঁধা অতিক্রম করে আমরা এই সিনেমার চিত্রায়ন কাজ সম্পন্ন করেছি,” বলেছেন নির্মাতা শাহরিয়া পুলক। তিনি নিজেও অভিনয় করেছেন এতে।

বিভিন্ন চরিত্রে আরো ছিলেন সবিনয় চাকমা, নয়না সোভা চাকমা, পোহেলি চাকমা, দিবস চাকমা, রাতুল তংচংজ্ঞা, অন্না চাকমা, সুমিকা চাকমা, শেখ বিশাল, উজ্জ্বল ভট্টাচার্য, নুরুল হক কচি, রতন, আজাদ মাস্টার, বাপ্পি আলমগীর, জনি দিব্য বড়ুয়া, শেরু মারমা প্রমুখ।

নির্মাতা শাহরিয়া পুলক বলেন, করোনা মহামারীরকালে সবকিছুই যখন স্থবির তখন ঘরে বসে কাজ করার আকাঙ্খাতেই আদিবাসী চাকমা ভাষায় ও আংশিক বাংলা ভাষায় এই সিনেমা তৈরীর পরিকল্পনা করি। পিতার চাকরির সুবাদে ছোটবেলা থেকেই পাহাড়ে এবং পাহাড়ি অধিবাসীদের সাথে গভীর বন্ধুত্ব আমার। খুব কাছ থেকে এই এই জাতিগত বিদ্বেষের সঙ্কটটাকে দেখার সুযোগ হয়েছে। আমার গল্পের মূল চরিত্র এক চাকমা পরিবারের ছোট মেয়ে পোহেলি। যার বন্ধুত্ব হয়েছির একটি বাঙালি ছেলের সঙ্গে। কিছুদিন পর ছেলেটি গুম হয়। তারও কিছুদিন পর জুম চাষ করতে গিয়ে খুন হয় আরেক পাহাড়ি মেয়ে। তাদের নিয়েই গল্প সাজানো হয়েছে। বর্তমানে সম্পাদনার টেবিলে আছে আমাদের ছবিটি।

বাংলাধারা/এফএস/টিএম

ট্যাগ :