বাংলাদেশ, ২রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সৌন্দর্য বাড়াতে বিপাশা বসুর বিউটি টিপস

প্রকাশ:২রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

বাংলাধারা ডেস্ক » 

সৌন্দর্য ও ফিটনেসের প্রতি বরাবরই মনোযোগী বলিউড তারকা বিপাশা বসু। করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউনে তিনি ব্যস্ত ছিলেন সৌন্দর্য আর ফিটনেসকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে। সম্প্রতি সে অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন ইনস্টাগ্রামে, সৌন্দর্য বাড়াতে ভক্তদের দিয়েছেন কিছু টিপস। দ্য ওয়ালের এক প্রতিবেদন থেকে সেগুলো জেনে নিই।

১. মেয়েরা চুল নিয়ে একটু বেশিই আবেগপ্রবণ। আর সেই চুল যদি উঠে যেতে থাকে, তাহলে কষ্ট হয় না কার! বিপাশা বসু মনে করিয়ে দিলেন, পেঁয়াজের রসে রয়েছে অনেক উপকারিতা। গোসলের এক ঘণ্টা আগে পেঁয়াজের রস মাথায় ভালো করে লাগালে চুল ওঠার পরিমাণ অনেক কমে যায়। বিপাশা নিজের ইনস্টা হ্যান্ডেলে মাথায় পেঁয়াজের রস লাগানোর ভিডিও পোস্ট করেন।

২. ত্বকের যত্ন নেওয়ার ক্ষেত্রে বিপাশা জানান, ত্বকের যত্নের ক্ষেত্রে আমি আমার ডায়েটের ওপর বেশি গুরুত্ব দিই। নির্দিষ্ট পরিমাণ পানি এবং সকালে উঠে ভেজানো বাদাম ত্বক ভালো রাখতে সাহায্য করে। রাতে ঘুমোনোর আগে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ বাদামের তেল চোখের কোণে, গালে লাগালে বলিরেখা দূর হয়। রাতে শুতে যাওয়ার আগে মুখ পরিষ্কার করে ময়েশ্চারাইজিং করতে তিনি ভোলেন না কখনো।

৩. সূর্যের ক্ষতিকারক পিগমেন্টেশন মুখের সূক্ষ্ম রেখাগুলোর ক্ষতি করে। এর থেকে ক্যানসার হওয়ার সম্ভাবনাও থাকে। এ প্রসঙ্গে বলিউডের এই গ্ল্যামারগার্ল বললেন, ‘আমি কখনো সানস্ক্রিন ছাড়া বেরোতে পারি না। সূর্যের ইউভি রশ্মি থেকে স্কিনকে রক্ষা করতে এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।’ এ ছাড়া চোখের জন্য তিনি সানগ্লাস ব্যবহারের কথাও বলেছেন।

৪. চুলের যত্নের বিষয়ে বিপাশা বলেন, ‘চুল আমার সৌন্দর্যের সবচেয়ে বড় সম্পদ। আমি বিশ্বাস করি ভালো কন্ডিশনার চুলকে চকচকে, নরম এবং জটমুক্ত রাখে। চুলের যত্নের ক্ষেত্রে আমি রুটিনমাফিক তেলও দিই চুলে।’

৫. চুলে হালকা কালার করা বা হাইটলাইট করাকেও নিজের পছন্দের তালিকায় রেখেছেন বিপাশা। তিনি জানান যে মুখের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে চুলে কালার করা যেতেই পারে। মুখের মেকআপ যেমন মুখের সৌন্দর্যকে বাড়ায় তেমনই চুলের হাইলাইটও চুলকে করে আকর্ষণীয়।

৬. বিপাশা জানান যে ঠোঁটের সৌন্দর্য নিয়ে তার অবসেশন রয়েছে। ম্যাট, ক্রিমি কিংবা গ্লজি –যে কোনো অনুষ্ঠানে লিপস্টিকের রং হিসাবে লালকেই সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য দিয়েছেন তিনি।

৭. শরীরকে সুস্থ রাখতে যেমন একটি নির্দিষ্ট ডায়েট প্রয়োজন, তেমনই বিপাশা জোর দিয়েছেন ওয়ার্কআউটের ওপরও। যোগাসনের পাশাপাশি বিভিন্ন রকমের ব্যায়াম অভ্যাস করার কথা বলেন তিনি। ওয়ার্কআউট শরীরকে সুস্থ রাখে, মানসিক চাপ কমায় এবং মন ভালো রাখতে সাহায্য করে।

৮. সৌন্দর্যের জন্য ভালো এবং পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন এই বলিউড সুন্দরী। তিনি বলেন, ‘শরীর সুস্থ রাখতে ঠিকমতো খাবার খাওয়া এবং পরিমাণ মতো সব খাবার খাওয়াই দরকার।’ বিপাশা নিজেই মিষ্টি খেতে ভীষণ ভালোবাসেন, কিন্তু খাওয়ার পাশাপাশি ওয়ার্কআউটের কথাও বলেন। লাল মাংস থেকে শুরু করে ডিম, দুধ, ভাত, ডাল, সবজি, মাছ তিনি সবই খান, তবে নির্দিষ্ট পরিমাণে। ত্বককে সুন্দর রাখার জন্য তিনি ওমেগা থ্রি, বাদাম, এবং ফ্যাটি অ্যাসিডযুক্ত খাবারকে প্রাধান্য দিয়েছেন।

বাংলাধারা/এফএস/ইরা

ট্যাগ :

close