বাংলাদেশ, ২৬শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বছরের দীর্ঘতম রাত আজ, কাল ক্ষুদ্রতম দিন

প্রকাশ:২৬শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বাংলাধারা প্রতিবেদন  »

আজ ২১ ডিসেম্বর। পৃথিবীর বুকে নেমে আসছে বছরের দীর্ঘতম রাত। এদিন সূর্য তার দক্ষিণায়নকালে নিরক্ষরেখা অতিক্রম করে মকরক্রান্তি রেখায় পৌঁছায়। এর ফলে পৃথিবীর উত্তর গোলার্ধে নেমে আসে পৃথিবীর দীর্ঘতম রাত। আর আগামীকাল ২২ ডিসেম্বর ক্ষুদ্রতম দিন। সূর্যের এ পরিক্রমকে বলে দক্ষিণ অয়নান্ত।

তবে বিপরীত অবস্থা থাকবে পৃথিবীর দক্ষিণ গোলার্ধে। সেখানে একই সময় হবে দীর্ঘতম দিন ও স্বল্পতম রাত।

জলবিষুব সংঘটনের পর সূর্য নিরক্ষরেখা অতিক্রম করার পর পৃথিবী যতই তার কক্ষপথে অগ্রসর হয়, ততই পৃথিবীর উত্তর গোলার্ধ সূর্য থেকে দূরে যেতে থাকে এবং দক্ষিণ গোলার্ধ সূর্যের দিকে ঝুঁকতে। এর ফলে উত্তর গোলার্ধে দিনের দৈর্ঘ্য ক্রমশ হ্রাস পায় এবং রাতের দৈর্ঘ্য বৃদ্ধি পেতে থাকে।

অপরদিকে দক্ষিণ গোলার্ধে এর ঠিক বিপরীত অবস্থা চলতে থাকে। এইভাবে উত্তর গোলার্ধ সূর্য থেকে সরে যাওয়ার ফলে ২০-২২ ডিসেম্বরের মধ্যে কোনো এক দিন উত্তর গোলার্ধ সূর্য থেকে সর্বাধিক দূরত্বে থাকে এবং দক্ষিণ গোলার্ধ থাকে সূর্যের সর্বাপেক্ষা নিকটে। অর্থাৎ এদিন সৌরপাদ বিন্দু ২৩.৫° দক্ষিণ অক্ষাংশে থাকে। অন্যভাবে বলা যায়, এদিন সূর্য মকরক্রান্তি রেখার ওপরে লম্বভাবে কিরণ দেয় এবং দক্ষিণ গোলার্ধের সর্বাধিক অংশ আলোকিত হয়। ফলে এ দিন উত্তর গোলার্ধে ক্ষুদ্রতম দিন ও দীর্ঘতম রাত্রি সংঘটিত হয় এবং একই সময়ে দক্ষিণ গোলার্ধে হয় এর ঠিক বিপরীত।

রাতটা দীর্ঘতম হলেও সঙ্গে থাকা এক ফালি চাঁদ সারারাতই সঙ্গ দেবে পৃথিবীকে। দীর্ঘ শীত রাতের ঘন কুয়াশায় সারারাত জমিয়ে রাখা শিশির টুপটাপ ঝরাতে থাকবে গাছের পাতারা।

দীর্ঘতম রাত অথবা হ্রস্বতম দিনকে এভাবে ব্যাখ্যা করা যেতে পারে- ২১ জুন তারিখে উত্তর গোলার্ধে আমরা পাই দীর্ঘতম দিন আর হ্রস্বতম রাত।

সূর্য এ সময় কর্কটক্রান্তি বৃত্তে অবস্থান করে। ক্রান্তি বৃত্তে সূর্যের এই প্রান্তিক অবস্থান বিন্দুকে বলা হয় উত্তর অয়নায়ন। দক্ষিণ গোলার্ধে এর বিপরীত অবস্থা।

এর পর থেকে দিন ছোট হতে থাকে আর রাত বড় হতে থাকে। অবশেষে ২৩ সেপ্টেম্বর সূর্য আবার অবস্থান নেয় বিষুব বৃত্তের বিন্দুতে, যেখানে ক্রান্তি বৃত্ত ও বিষুব বৃত্ত পরস্পরকে ছেদ করেছে। একে বলা হয় জলবিষুব বিন্দু।

এই দিন পুনরায় পৃথিবীর সর্বত্র দিন-রাত সমান হয়ে থাকে। আবার এর পর থেকেই উত্তর গোলার্ধে ক্রমশ রাত বড় হতে হতে সূর্য পৌঁছে যায় ক্রান্তি বৃত্তের দক্ষিণ অয়নায়ন বিন্দুতে।

এভাবে ২১ ডিসেম্বর তারিখে উত্তর গোলার্ধে হয় দীর্ঘতম রজনী আর ক্ষুদ্রতম দিবস। এ সময় সূর্য মকর বৃত্তে অবস্থান করে থাকে।

বাংলাধারা/এফএস/এআর

ট্যাগ :

close