বাংলাদেশ, ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

জীবনের সিংহভাগ সময় মাঠে কাটালেন ফুটবল প্রেমী হারুন

প্রকাশ:২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

দেবাশীষ বড়ুয়া রাজু  »

মাঠের মানুষ ফুটবল প্রেমী হারুন-অল-রশীদ বাবলু। ক্রীড়া সংগঠক হারুন-অর-রশীদ বাবলুর জন্ম ১৯৭১ সালের ৩ আগস্ট। খেলা পাগল মানুষটি জীবনের বেশির ভাগ সময় কাটিয়ে দিয়েছেন মাঠেই। তিনি বোয়ালখালী উপজেলার সারোয়াতলী খিতাপচর গ্রামের মোজাহেরুল হকের ছেলে।

১৯৯২ সালে প্রতিষ্ঠিত বোয়ালখালী খেলোয়াড় সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক তিনি। এই সংগঠনের মাধ্যমে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ক্রীড়া সংস্থা আয়োজিত পাইওনিয়ার ফুটবল লীগ ২০০২ইং অংশগ্রহণ করেন। ঢাকা ও চট্টগ্রাম ফুটবল লীগের খেলোয়াড় নিয়ে বোয়ালখালীর বিভিন্ন ভেন্যুতে প্রীতি ফুটবল ম্যাচের আয়োজন এবং ২০০৩ সালে সাইফুল-রিয়াদ স্মৃতি ফুটবল টূর্ণামেন্টের আয়োজন করা হয়। এই টূর্ণামেন্টে তিনি সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়া ২০১৯ সালে প্রয়াত খেলোয়াড়দের নামে একটি টূর্ণামেন্টেরও আয়োজন করে খেলোয়াড় সমিতি। ১৯৯৩ সাল থেকে চট্টগ্রাম ফুটবল খেলোয়াড় সমিতির কার্য নির্বাহী সদস্য হিসেবে রয়েছেন এই মানুষটি।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল (অ-১৭) টূর্ণামেন্ট-২০১৮ এবং ২০১৯ সালে বোয়ালখালী উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার পরপর দু’বার ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেন হারুন-অর-রশীদ বাবলু। ২০১৮ সালের এই টূর্ণামেন্টে বোয়ালখালী উপজেলা দক্ষিণ জেলা চ্যাম্পিয়ন এবং জেলায় রানার-আপ হয়।

১৯৯৪ সালে চট্টগ্রাম জেলা স্কুল ও মাদ্রাসা ক্রীড়া সমিতি জাতীয় ফুটবল প্রতিযোগিতায় বোয়ালখালীর শাকপুরা আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয় দক্ষিণ জেলার চ্যাম্পিয়ন হয়। সেই স্কুলের কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন তিনি। ২০০১ সালে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন খিতাপচর ফুটবল একাদশ। প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন এই ক্রীড়া প্রেমী মানুষটি। ২০০৩ সালে অনুষ্ঠিত সাইফুল-রিয়াদ স্মৃতি ফুটবল টূর্ণামেন্টে রানার্স-আপ হয় খিতাপচর ফুটবল একাদশ। সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সংগঠন বেঙ্গুরা ক্রীড়া সমিতিরও কোচের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। বোয়ালখালী উপজেলা ক্রীড়া সমিতির ২০১৫ইং থেকে ২০২১ইং পর্যন্ত যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

২০০৬ সালে ৫নং সারোয়াতলী বীর মুক্তিযোদ্ধা চেয়ারম্যান আবুল বশর স্মৃতি গোল্ডকাপ ফুটবল টূর্ণামেন্ট পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব এর দায়িত্ব পালন করেন তিনি। ২০১৯ সালে ৫নং সারোয়াতলী ইউনিয়ন পরিষদ আয়োজিত বেলাল চেয়ারম্যান (ওয়ার্ড ভিত্তিক) গোল্ডকাপ ফুটবল টূর্ণামেন্ট পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করে কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখেন। ২০১২ এবং ২০১৩ সালে চট্টগ্রাম জেলা আয়োজিত বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টূর্ণামেন্টে সারোয়াতলী প্রাথমিক বিদ্যালয় দুইবার দক্ষিণ জেলায় রানার্স-আপ হয়। সেই বিদ্যালয়ের কোচের দায়িত্ব পালন করেছিলেন হারুন-অর-রশীদ বাবলু।

১৯৯০ সনে চট্টগ্রাম বন্দরের পক্ষে ২য় বিভাগ ফুটবল লীগ এ অংশ গ্রহণ করেছিলেন তিনি। ১৯৯১ সালে চট্টগ্রাম বন্দরের পক্ষে প্রথম বিভাগ ফুটবল লীগে খেলার জন্য ঢাকা-চট্টগ্রাম থেকে খেলোয়াড় বাছাই পর্বে বোয়ালখালী থেকে মনোনীত হয়ে চট্টগ্রাম বন্দরের পক্ষে প্রথম বিভাগ ফুটবল লীগে খেলেন তিনি।

২০২১ সালে বোয়ালখালীতে সাংসদ মোছলেম উদ্দিন আহমদের প্রধান পৃষ্ঠপোষকতা এমপি গোল্ডকাপ ফুটবল টূর্ণামেন্ট কমিটির যুগ্ম-মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করে চলেছেন এই ক্রীড়ামোদি মানুষটি।

শুধু ক্রীড়া ক্ষেত্রে নয় শিক্ষা ক্ষেত্রেও তিনি অবদান রেখে চলেছেন। ২০১৪ সালে বেংগুরা কে.বি.কে আর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদে সর্বোচ্চ ভোটে অভিভাবক সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। ২০১৬ সালে বেংগুরা কে.বি.কে আর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটিতে দাতা সদস্য নির্বাচিত হন। ২০১৮ সালে বেংগুরা কে.বি.কে আর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির অভিভাবক সদস্য মনোনীত হন। ২০১৮ সালে বেলাল চেয়ারম্যান মডেল স্কুলের পরিচালনা কমিটির সদস্য মনোনীত হন। ২০১৭ সালে বেঙ্গুরা কে.বি.কে আর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মনোনীত হন। সারোয়াতলীতে চেয়ারম্যান স্মৃতি কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের পরিচালকের দায়িত্ব রয়েছেন তিনি।

রাজনীতিতেও তিনি ২০১৫-১৭ ইং পর্যন্ত ৫নং সারোয়াতলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আওতাধীন খিতাপচর ৫নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক এবং ২০১৮-২০২১ পর্যন্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন তিনি। হারুন-অর-রশীদ বাবলু ২০১৮-২০২১ ইং পর্যন্ত সারোয়াতলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

এছাড়া ২০০৯-২০১৪ পর্যন্ত আধ্যাত্মিক সংগঠন আঞ্জুমানে আছাদিয়া নূরীয়া সেহাবিয়া খিতাপচর ৫নং ওয়ার্ড শাখার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।

এসব কর্মকাণ্ডের কৃতিত্ব স্বরূপ পেয়েছেন বিভিন্ন সম্মাননা। এর মধ্যে উল্লেখ যোগ্য সম্মাননা ১৯৯৪ সালে চট্টগ্রাম জেলা স্কুল ও মাদ্রাসা ক্রীড়া সমিতি ফুটবল টূর্ণামেন্ট এ জেলা চ্যাম্পিয়ন বোয়ালখালী শাকপুরা আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়ের কোচ হিসাবে সনদ ও ক্রেষ্ট। ২০০৪ সালে বোয়ালখালী উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা আয়োজিত ইকবাল স্মৃতি ফুটবল টূর্ণামেন্ট এ ফুটবল কমিটির সম্পাদক হিসাবে সম্মাননা ক্রেষ্ট। ২০০৬ সালে বীর মুক্তিযোদ্ধা চেয়ারম্যান আবুল বশর স্মৃতি ফুটবল টূর্ণামেন্ট এ মেসার্স খায়ের এ- সন্স সৌজন্য সংগঠক হিসাবে সম্মাননা ক্রেষ্ট। ২০১২ সালে বেংগুরা ক্রীড়া সমিতি আয়োজিত বিজয় দিবস অনুষ্ঠানে সংগঠনের কোচ হিসাবে সম্মাননা ক্রেষ্ট। ২০১৩ সালে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টূর্ণামেন্ট কমিটি চট্টগ্রাম জেলার পক্ষে সারোয়াতলী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোচ হিসেবে সম্মাননা মেডেল। ২০১৪ এবং ২০১৫ সালে ৫নং সারোয়াতলী ইউনিয়ন পরিষদ আয়োজিত বর্ষপূর্তি ও গুণীজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তরুণ প্রজন্মের ক্রীড়ার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের সংগঠক হিসাবে পেয়েছেন সম্মাননা সনদ ও ক্রেষ্ট। সুস্থ সুন্দর জাতি গঠন এবং সৃজনশীল সমাজ বিনির্মাণে আগামী প্রজন্মদের খেলাধুলায় মনোনিবেশ করতে স্ব-স্ব অবস্থান থেকে সবাইকে ভুমিকা রাখতে হবে বলে মনে করেন তিনি।

বাংলাধারা/এফএস/এআর

ট্যাগ :

close