বাংলাদেশ, ১৩ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩০শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

তেলে আগুন, পেঁয়াজে ঝাঁজ; কমতে শুরু করেছে চাল ও সবজির দাম

প্রকাশ: শনিবার, ১ মে, ২০২১

মোহাম্মদ সৈকত »

সপ্তাহের ব্যবধানে তেল ও পেঁয়াজের দাম আবারো বেড়েছে। বোতলের সয়াবিন তেলের পাশাপাশি খোলা সয়াবিন ও পাম সুপারের দামও বেড়েছে। আর শাক-সবজিসহ অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

শনিবার (১ মে) চট্টগ্রাম নগরীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বেশিরভাগ খুচরা ব্যবসায়ী সয়াবিন তেল বিক্রি করছেন ১৪০ টাকা দরে যা গত সপ্তাহে ছিল ১৩৫ টাকা । নগরীর কাজীর দেউড়ি বাজার এলাকায় বোতলে ভরা এক লিটার সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৪০ টাকা দরে। ব্যবসায়ী রফিকুল আলম বলেন, সয়াবিন তেল এখন আমাদের বাড়তি দামে কিনতে হচ্ছে তাই বিক্রিও করছি বাড়তি দামে। কোম্পানি যদি আমাদের কম দামে দেয় আমরাও কাস্টমারের কাছে কম দামে বিক্রি করবো ।

এদিকে ফইল্লাতলী বাজারের ব্যবসায়ী আশরাফ খান বলেন, আগে সয়াবিনের এক লিটারের বোতল ১৩৫ টাকা বিক্রি করেছি এখন ১৪০ টাকা , দুই লিটার করেছি ২৬৫ টাকায় এখন ২৭৫ টাকা।

বতলজাত সয়াবিনের অয়াশপাশি খোলা সয়াবিন তেলের দামও কেজিতে চার-পাঁচ টাকা বেড়ে গেছে। দু’দিন আগে ১২৮ থেকে ১৩০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া খোলা সয়াবিন তেল এখন বিক্রি হচ্ছে ১৩৩ থেকে ১৩৫ টাকায়। এর সঙ্গে বেড়েছে পাম সুপারের দাম। ১২০ থেকে ১২২ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া পাম সুপারের দাম বেড়ে ১২৫ থেকে ১২৭ টাকা বিক্রি হচ্ছে।

গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে পাঁচ থেকে ১০ টাকা বেড়ে পেঁয়াজ ৪০ থেকে ৪৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। যা গত সপ্তাহে ৩০ থেকে ৩৫ টাকায় নেমেছিল।

পেঁয়াজের দাম বাড়ার প্রসঙ্গে দেওয়ান হাট কাঁচাবাজারের ব্যবসায়ী জাহেদ বলেন, হঠাৎ করে পেঁয়াজের চাহিদা বেড়ে গেছে। এ কারণে দামও বাড়ছে। এক সপ্তাহের ব্যবধানে কিছু সবজির দাম কমেছে। আর অধিকাংশ সবজির দাম আগের মতোই আছে।

তেল ও পেঁয়াজের দাম বাড়লেও এ সপ্তাহে চালের দাম কমতে শুরু করেছে। মোটা চালের দাম না কমলেও চিকন ও মাঝারি মানের চালের দাম কিছুটা কমেছে। গত সপ্তাহের ৫৮ টাকা কেজি চাল এই সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ৫৭ টাকা। আদা ও চাল ছাড়াও দাম কমার তালিকায় রয়েছে ছোলা, আলু ও ময়দা। তবে এই সপ্তাহে কমেছে আদার দাম। আমদানি ও দেশী দুই ধরনের আদার দামই কমেছে।

টিসিবির হিসাব বলছে, গত এক সপ্তাহে আদার দাম কমেছে সাড়ে ১২ শতাংশ। ব্যবসায়ীরা বলছেন, দেশি প্রতি কেজি আদার দাম কমেছে ১০ থেকে ২০ টাকার মধ্যে। অর্থাৎ ১০০ থেকে ১৪০ টাকা কেজি আদা এখন ৯০-১২০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। আর ৮০ টাকা কেজি আমদানি আদা পাওয়া যাচ্ছে ৭০ টাকায়।

দাম কমার তালিকায় রয়েছে-পটল, বরবটি, ঢেড়স, ঝিঙে। পটলের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৪০ থেকে ৫০ টাকা। গত শুক্রবার ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া বরবটির দাম কমে ৪০ থেকে ৫০ টাকা হয়েছে। ঢেড়সের কেজিও বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৫০ থেকে ৬০ টাকা।

আর ফার্মের মুরগির দাম এখন কেজি প্রতি ১৪০ টাকা জা আগে ছিল ১৫০ টাকা , পাকিস্তানি কক বা সোনালী মুরগি ২৫০ টাকা যা আগে ছিল ২৭০-২৮০ টাকা , দেশি মুরগি ৪২০ টাকা , গরুর মাংস ৬০০ টাকা আর খাসি ৭০০-৭৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে ।

ট্যাগ :

close