বাংলাদেশ, ২৯শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কাস্টমস কর্মকর্তা এবং সিএন্ডএফ ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

প্রকাশ: বুধবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২১

বাংলাধারা প্রতিবেদক»

জালিয়াতি করে পণ্যের খালাসের অভিযোগে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের দুই কর্মকর্তা এবং এক সিএন্ডএফ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বুধবার (২৪ নভেম্বর) দুপুরে দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়, চট্টগ্রাম-১ এর উপ পরিচালক মো. আবু সাঈদ বাদি হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

জানা যায় এইচ এস কোড সংক্রান্ত কাগজপত্র জালিয়াতির অভিযোগ এনে মামলাটি দায়ের করা হয়।মামলায় অভিযুক্তরা হলেন, ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া থানার পূর্ব মধুগ্রাম এলাকার মৃত সৈয়দ আহমেদ মজুমদারের পুত্র ইকবাল হোসেন। তার সিএন্ডএফ প্রতিষ্ঠানের নাম নেপচুন ট্রেডিং এজেন্সি। চট্টগ্রামের হালিশহর থানার এইচ ব্লক ১ নম্বর রোডের বাসিন্দা মো. আব্দুল মান্নান চৌধুরী। তার সিএন্ডএফ প্রতিষ্ঠানের নাম বনলতা শিপিং এজেন্সি লিমিটেড।অপর আসামীরা হলেন চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউজের সেকশন-বি’র সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম মোল্ল্যা ও চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউজের (সাবটিম-১২ ও অতিরিক্ত দায়িত্ব প্রশাসন শাখা) রাজস্ব কর্মকর্তা (আরও) নাছিরউদ্দিন মাহমুদ খান।

সিএন্ডএফ প্রতিষ্ঠান নেপচুন ট্রেডিং এজেন্সির বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ করা হলেও কাস্টমসের দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে শুল্ক ফাঁকিতে সহায়তার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়।এখানে প্রায় ২৪ লাখ ৩৩ হাজার ৫০২ দশমিক ৫০ টাকা শুল্ক ফাঁকি দিয়ে পণ্য খালাস করে সিএন্ডএফ প্রতিষ্ঠান দুইটি।

মামলার বাদী দুদকের চট্টগ্রামের উপ-পরিচালক মো. আবু সাঈদ বাংলাধারাকে জানান, দুইটি সিএন্ডএফ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে জালিয়াতি করে পণ্য খালাসের অভিযোগে এবং শুল্ক ফাঁকিতে সহয়তার জন্য কাস্টমসের দুই কর্মকর্তা বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়।এই বিষয়ে দন্ডবিধি অনুযায়ী আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

বাংলাধারা/এফএস/এফএস

ট্যাগ :

close