গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার নিবন্ধিত। রেজি নং-০৯২

রেজিঃ নং-০৯২

ফেব্রুয়ারি ২, ২০২৩ ৫:৫৭ অপরাহ্ণ

পর্যাপ্ত পানি পান না করলে কমতে পারে আয়ু

লাইফস্টাইল ডেস্ক »

পানিশূন্যতার কারণে নানান সমস্যা হতে পারে। তবে জীবনের সময়ও যে কমতে পারে সেটা হয়ত অনেকেরই জানা নেই। জানা থাকবেই-বা কীভাবে! আগে তো কেউ এমন কথা বলেনি।

পানি কম গ্রহণের কারণে যে বেঁচে থাকার সময়কাল কমতে পারে, সেই বিষয়েই গবেষণার করে দেখিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের বেথেস্ডা’তে অবস্থিত ‘ন্যাশনাল হার্ট, লাং অ্যান্ড ব্লাড ইন্সটিটিউট’য়ের গবেষকরা।

গবেষণায় দেখা গেছে, আর্দ্রতা রক্ষার মাধ্যমে বয়স ধরে রাখতে সহায়তা করে। পর্যাপ্ত পানি পানের অভাবে বয়সের ছাপ দ্রুত এমনকি আয়ু সীমিত হয়ে যায়।

তিন দশক ধরে প্রাপ্ত বয়স্কদের ওপর চালানো পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে এই গবেষণা প্রকাশিত হয় ‘পিয়ার-রিভিউড জার্নাল’ ‘দি লানসেট’য়ে।

গবেষণার উদ্ধৃতি দিয়ে টাইমসঅবইন্ডিয়া ডটকম’য়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানানো হয়, প্রাপ্ত বয়স্কদের যারা সঠিকভাবে নিজেদের আর্দ্রতা রক্ষা করে তাদের আয়ুকাল দীর্ঘ হয়। আর নানান রোগ যেমন- হৃদরোগ ও ফুসফুসের জটিলতা কমে।

গবেষণা
আর্দ্র থাকা বয়সের ছাপ ধীর করে এই- এর সত্যতা যাচাইয়ের লক্ষে গবেষকরা তিন দশক ধরে ১১ হাজার ২শ’ জন্ প্রাপ্ত বয়স্কদের ওপরে একটা সমীক্ষা চালান।

অংশগ্রহণকারীরা পাঁচবারের বেশি সাক্ষাতে আসেন। প্রথম দুবার তাদের বয়স পঞ্চাশের মধ্যে। আর বাকিগুলো বয়স ৭০ থেকে ৯০ এর মধ্যে।

যেভাবে পানির মাত্রা নির্ধারণ করা হয়
গবেষকরা ‘সিরাম সোডিয়াম’ পরীক্ষার মাধ্যমে একজন ব্যক্তির দেহের আর্দ্রতার মাত্রা নির্ণয় করেন। আর এই পদ্ধতির মাধ্যমে পানিশূন্যতার মাত্রা ও একজনের রক্তে কতটা সোডিয়াম আছে তা বোঝা যায়।

যুক্তরাষ্ট্রের মায়ো ক্লিনিকের তথ্যানুসারে, রক্তের সাধারণ সোডিয়ামের মাত্রা প্রতি লিটারে ১৩৫ থেকে ১৪৫ মি.লি. মোলস।

পর্যবেক্ষণে যা দেখা গেছে
যাদের সোডিয়ামের মাত্রা প্রতি লিটারে ১৪৪ মি.লি. মোলস তাদের অকালে মৃত্যুহার ২১ শতাংশ বেশি থাকে।

সোডিয়ামের মাত্রা প্রতি লিটারে ১৪২ মি.লি. মোলস হওয়া দীর্ঘমেয়াদী রোগে ভোগার ঝুঁকি ৩৯ শতাংশ বৃদ্ধি পায়।

মানে হল- একজন ব্যক্তির সোডিমায়ের মাত্রা প্রতি লিটারে ১৪২ মি.লি. মোলস বা তার বেশি হওয়া অকাল মৃত্যু বা দীর্ঘমেয়াদী রোগে ভোগার সম্ভাবনা বাড়ায়। তাই গবেষকদের মতে, দীর্ঘমায়াদে পানি স্বল্পতা জীবনকাল ছোট করার জন্য দায়ী।

আরেকটা বিষয় মনে রাখতে হবে, কেবল আর্দ্র থাকা নয় বরং সঠিক উপায়ে আর্দ্র থাকা সুস্থ দেহের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

দিনে কতটা পানি পান জরুরি
যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রিয় রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংস্থা’র তথ্যানুসারে, একজন ব্যক্তির পানি পানের আদর্শ কোনো মাপ নেই। সাধারণতভাবে বলা হয় দৈনিক ছয় থেকে আট কাপ পানি পান করতে।

তবে ‘দ্যা ন্যাশনাল অ্যাকাডেমিস ফর সায়েন্সেস, ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড মেডিসিন’ পরামর্শ দেয় যে, একজন পুরুষের দৈনিক ১৫.৫ কাপ (৩.৭ লিটার) ও নারীদের ১১.৫ কাপ (২.৭ লিটার) তরল গ্রহণ করা প্রয়োজন।

মনে রাখা দরকার
আর্দ্র থাকতে সারাদিন পর্যাপ্ত পানি ও পানীয় পান করা প্রয়োজন। যদি দেহে পানি শূন্যতা অনুভূত হয় তাহলে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। আর আর্দ্র থাকার জন্য ব্যবস্থা গহণ করতে হবে।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on telegram
Telegram
Share on skype
Skype
Share on email
Email

আরও পড়ুন

অফিশিয়াল ফেসবুক

অফিশিয়াল ইউটিউব

YouTube player